how drop shipping

Drop Shipping কি? কিভাবে কাজ করে? ড্রপশিপিং বিজনেস কমপ্লিট গাইডলাইন

Facebook Boost Service

ড্রপশিপিং আসলে কী?

মনে করুন আপনি একটা সাইট করবেন যেখানে আপনি কিছু পণ্য বিক্রি করবেন কিন্তু প্রোডাক্ট ক্রয় করে আপনার ঘরে রেখে বিক্রি করার মতো মূলধন নেই আবার পুরো কার্যক্রমটা চালানোর মতো লোকবল নেই। তবুও আপনি এই বিজনেস করতে পারবেন। সোজা কথায় আপনার নিজের ষ্টোরে প্রোডাক্ট সাজিয়ে রাখলেন, এরপর কাস্টমার আপনার ষ্টোরে ঢুকে সেই প্রোডাক্টটি কিনতে অর্ডার করল, এবার আপনি একজন সাপ্লায়ারের নিকট থেকে উক্ত পন্যটি ক্রয় করে তা আপনার কাস্টমারের নিকট পাঠিয়ে দিলেন এই সিস্টেমটাই ড্রপশিপিং।সহজে বুঝি

এক কথায় বলতে গেলে, পাইকারি বিক্রেতার কাছ থেকে সরাসরি কাস্টমারের কাছে পণ্য পৌঁছে দেয়ার নামই ড্রপ শিপিং। সহজ করে বললে, আপনি সাপ্লায়ার/উৎপাদনকারীর সাথে একটা চুক্তি করবেন। তারপর সাপ্লায়ার/উৎপাদনকারীর যে পণ্যগুলো নিয়ে আপনি কাজ করবেন সেগুলোর তথ্য ,ছবি ইত্যাদি নিয়ে অনলাইনে একটি স্টোর (ই-কমার্স ওয়েব সাইট) তৈরি করবেন।
আপনার সাইটে কেও কিছু অর্ডার করলে আপনি সেই অর্ডার ডিটেইলস আপনার সাপ্লায়ার/উৎপাদনকারীকে জানিয়ে দিবেন। তিনি আপনার কোম্পানীর লগো ,ঠিকানা ইত্যাদি ব্যবহার করে তা প্যাকেজ করে পাঠিয়ে দিবে। ক্রেতা বুঝবে আপনিই তাকে পাঠিয়েছেন।

কীভাবে Drop Shipping Business শুরু করবেন?

যদি আপনি কোন জিনিস বিক্রি করতে চান তাহলে প্রথমেই যে জিনিসটা প্রয়োজন তা হলো দোকান/ষ্টোর। তাহলে অনলাইনের ক্ষেত্রেও তাই। আপনাকে একটা দোকান করতে হবে। এবার আসা যাক আপনি কি ধরনের দোকান নিবেন। অনলাইনেও তাই। Shopify নামে একটি রেডি দোকান রয়েছে যা নিয়ে মাসে মাসে ভাড়া দিতে পারেন। কিন্তু Shopify এর ভাড়া অনেক বেশি। সেই জন্য নিজে E-Commerce ওয়েবসাইট করে নেওয়া ভালো। কারন
আপনি ১ বছরে Shopify এর যে ভাড়া দিবেন , এই টাকা দিয়ে আপনি E-Commerce ওয়েবসাইট করলে অনেক লাভ করতে পারবেন। নিজের ওয়েবসাইটে খরচ কম।

ড্রপ শিপিং ব্যাবসা এর জন্য প্রধান যে ৪ টি জিনিস প্রয়োজন-

ডোমেই+হোস্টিং
একটি সুন্দর E-Commerce ওয়েবসাইট থিম
আলিড্রপশিপ Plugins
আলি-ইন্সপেক্টর সফটও্যার
এই ৪ টি জিনিস হলেই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

ড্রপ শিপিংয়ের মাধ্যমে কেমন আয় করা সম্ভব?

অন্যান্য সকল ব্যবসার মতো, মুনাফা এবং সাফল্যের মাত্রা নির্ভর করে কিছু বিষয়ের উপর- পণ্য নির্বাচনের প্রতি ব্যবসায়ীর সুক্ষ্ম পর্যবেক্ষণ এক্ষেত্রে সবচেয়ে লক্ষ্যণীয়। কিন্তু একটি দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনার মাধ্যমে কঠিন পরিশ্রম ও সঠিক কাজ দ্বারা প্রায় দশগুণ আয়ের উপযোগী একটি ড্রপ শিপিং ব্যবসা গড়ে তোলা সম্ভব।
নিজের ই-কমার্স সাইট তৈরি করেই একটি দীর্ঘমেয়াদী সফল ও মুনাফা অর্জনকারী ড্রপ শিপিং ব্যবসা চালানো সম্ভব। কি পরিমান আয় করতে পারবেন এটি মূলত আপনার উপর নির্ভর করছে। আপনি যে পরিমান খরচ করবেন সেই অনুপাতেই রিটার্ন পাবেন।
ড্রপ শিপিং মোটেও কোন ম্যাজিক ফর্মূলা নয় – উল্লেখযোগ্য কাজ এবং সময়ের মাধমে এক্ষেত্রে মূল সাফলতা পাওয়া সম্ভব। তবে এটি একটি টেকসই এবং ঝুঁকিহীন অনলাইন ব্যবসা।

যে কারণে আপনি ড্রপশিপিং করবেন?

ড্রপ শিপিংয়ে লক্ষ লক্ষ ডলার বিনিয়োগের দরকার নেই।
অর্ডার আছে এমন পণ্য ক্রয়ের অর্ডারের পরিবর্তে, আপনি শুধুমাত্র একটি পণ্য কিনতে পারেন।
বিক্রয়ের জন্য কোন পণ্য আপনাকে আগেই কিনতে হচ্ছে না
শুধুমাত্র একটি ল্যাপটপ এবং ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমেই ড্রপ শিপিং ব্যবসা চালানো সম্ভব।

ড্রপশিপিং করতে যে কাজ গুলো আপনাকে জানতে হবে ।

1. ড্রপশিপিং এর বেসিক টু এডভ্যান্স

2.ড্রপশিপিং সাইট বিল্ডিং এর বেসিক টু এডভ্যান্স

3.ওয়েবসাইট মার্কেটিং

4.ডিজিটাল মার্কেটিং

5.সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

6.ফেসবুক মার্কেটিং

7.ইন্টাগ্রাম মার্কেটিং

8.রেডিট মার্কেটিং

9.পিনটারেষ্ট মার্কেটিং

10.ইউটিউব মার্কেটিং

11.ইমেইল মার্কেটিং

12.পেইড মার্কেটিং বেসিক টু এডভ্যান্স

13.ফ্রি ট্রাফিক আনার কৌশল

14.অল্প সময়ে সেল করার বিশেষ ট্রিক্স

15.ফ্রিতে সেল করার কৌশল

16.আর্টিকেল মার্কেটিং

17.ই-বুক মার্কেটিং

আরো অনেক কিছু……………………..

ড্রপশিপিং বিজনেজের জন্য কি পেমেন্ট গেটওয়ে লাগবে ?

আপনার একটা পেমেন্ট গেটওয়ে লাগবে, paypal সবচেয়ে ভাল solution কিন্তু আমাদের উক্ত সোনার হরিণটি নাই বিধায় আমরা 2 checkout ব্যবহার করতে পারি। আরো অনেক পেমেন্ট গেটওয়ে আছে সে গুলোও নিতে পারেন ( পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স দরকার এই ক্ষেত্রে)